৪০০ শিষ্যের ‘যৌনক্ষমতা কেড়ে নেন’ রাম রহিম

শনিবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ২:১৮ অপরাহ্ণ | 201 বার

৪০০ শিষ্যের ‘যৌনক্ষমতা কেড়ে নেন’ রাম রহিম

প্রায় ৬ মাস হয়ে গেল ভারতের স্বঘোষিত ধর্মগুরু গুরমিত রাম রহিম সিং জেলে। ডেরা সাচা সওদা প্রধান আশ্রমের ভেতরেই দুই সাধ্বীকে ধর্ষণের সাজা ভোগ করছেন তিনি। কিন্তু এবার তার বিরুদ্ধে উঠেছে আরও একটি গুরুতর অভিযোগ। আশ্রমের প্রায় ৪০০ জন শিষ্যের ‘যৌনক্ষমতা’ পাকাপাকিভাবে কেড়ে নেন গুরমিত রাম রহিম, কেটে ফেলেন আশ্রমের প্রত্যেক শিষ্যের অণ্ডকোষ—এমনই অভিযোগ করেছেন শিষ্যরা। পেপসির সঙ্গে মাদক মিশিয়ে সংজ্ঞাহীন করে চলত সার্জারি। এই অভিযোগে রাম রহিমের বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা করেছে সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই)।

বৃহস্পতিবার সিবিআই কর্মকর্তারা রাম রহিম ও তার দুই ‘চিকিৎসক’ স্যাঙাতের বিরুদ্ধে পঞ্চকুলার বিশেষ আদালতে মামলা রুজু করেন। অভিযুক্ত দুই চিকিৎসক পঙ্কজ গর্গ ও এমপি সিং-ই ৪০০ জনের অণ্ডকোষ কেটে ফেলার সার্জারি করেন বলে জানিয়েছেন সিবিআই কর্মকর্তারা। এই ‘তিনমূর্তি’ আশ্রমের শিষ্যদের মধ্যে প্রচার করত, ‘যৌনক্ষমতা হারালেই ঈশ্বরের কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়া যাবে। পূণ্য অর্জন হবে, হবে সিদ্ধিলাভও।’

তবে তদন্তকারী কর্মকর্তারা বলছেন, এসবই রাম রহিমের যৌন লালসার ফল। আশ্রমের সমস্ত কম বয়সী সাধ্বীদের একাই ভোগ করার লালসা ছিল রাম রহিমের। তাই সে চাইত না, আশ্রমে সে ছাড়া অন্য কোনও পুরুষ মানুষ থাকুক। তাই সিরসার আশ্রমের ৪০০ জন শিষ্যর নির্বীজকরণের নির্দেশ দেয় রাম রহিম। এই ঘটনার তদন্তের ভার সিবিআইকে দেয় পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট।

সিবিআই মুখপাত্র অভিষেক দয়াল বলছেন, ‘রাম রহিমের বিরুদ্ধে প্রায় ৪০০ জন অভিযোগ দায়ের করে জানিয়েছেন, তাদের ভুল বুঝিয়ে সার্জারি করানো হয়। বলা হয়, মিলনক্ষমতা হারালেই নাকি ঈশ্বরের কাছাকাছি আসা যাবে, হয়ে ওঠা যাবে রাম রহিমের বিশেষ ভক্ত। সেই লোভেই শিষ্যরা সার্জারি করান। কিন্তু এবার বাবার জারিজুরি ধরা পড়ে যাওয়ায় প্রতিবাদে মুখর হয়েছেন ওই শিষ্যরা।’

রাম রহিম ছাড়া এই নৃশংস কাণ্ডের অন্যতম মূল অভিযুক্ত এমপি সিং ইতোমধ্যেই পঞ্চকুলায় দাঙ্গা ও হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রয়েছেন। ডেরাপ্রধানের গ্রেপ্তারের কয়েক ঘণ্টা পরই তাকে হেফাজতে নেওয়া হয়। ২০০২ সালে দুটি ধর্ষণের মামলায় গত আগস্টে গ্রেপ্তার হন রাম রহিম সিং। আগামী ২০ বছর তাকে কারাগারে কাটাতে হবে। তাকে গ্রেপ্তারে পরই রাম রহিমের পালিতা কন্যা হানিপ্রীতের ‘প্ররোচনায়’ পঞ্চকুলা ও সিরসায় ব্যাপক অশান্তি শুরু হয়। মারা যান অন্তত ৩০ জন মানুষ, আহত হন ২৫০ জনেরও বেশি।

সূত্র: samakal

Share this...
Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

মন্তব্য

comments

সরকারী কর্মচারী আয়কর অব্যাহতি এর গেজেট

২০১৭ | এই ওয়েবসাইটের কোনো সংবাদ বা ছবি অন্য কোথাও প্রকাশ করবেন না

Development by: Rumi